Monday, November 23, 2020
অন্যান্য ঢাকায় প্রবেশ বা বের হতে পারবে না কেউ

ঢাকায় প্রবেশ বা বের হতে পারবে না কেউ

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে ঢাকায় প্রবেশ এবং বাহির হওয়ার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে বাংলাদেশ পুলিশ।

সরকারের নির্দেশে সামাজিক দূরত্ব মানার সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করতেই ঢাকায় প্রবেশ এবং বের হবার ব্যাপারে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে পুলিশ।

সংক্রমণ ঠেকাতে জরুরি সেবার সঙ্গে নিয়োজিতরা ছাড়া রাজধানী কেন্দ্রিক সাধারণ মানুষের আগমন-বহির্গমন বন্ধে কঠোর হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী।

এর আগে কিছু কারখানা চালু হওয়ার খবরে শনিবার দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে পোশাক শ্রমিকসহ হাজার হাজার মানুষের ঢাকামুখী ঢল নামে।

এ নিয়ে ব্যাপক সমালোচনার পর গতরাতে আইজিপি এ নির্দেশনা দেন বলে জানিয়েছেন পুলিশ সদর দফতরের সহকারী মহাপরিদর্শক (মিডিয়া) সোহেল রানা।

সোহেল রানা বলেন, করোনাভাইরাসের মধ্যে ঢাকার বাইরে থেকে ছুটে আসা শ্রমিকসহ সাধারণ মানুষ যেন ঢাকায় প্রবেশ করতে না পারে সে ব্যাপারে আইজিপির নির্দেশ সংশ্লিষ্ট পুলিশ কর্মকর্তাদের জানানো হয়েছে।

পুলিশের এ কর্মকর্তা বলেন, সব ধরনের মুভমেন্ট বন্ধ আছে। কেউ ঢাকার বাইরে যেতে পারবেন না, ঢাকায় ঢুকতে পারবেন না।

তিনি বলেন,যে যেখানে আছেন, সেখানে অবস্থান করবেন, কোথাও সমবেত হতে পারবেন না। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে।

স্বাস্থ্য সুরক্ষা এখন সবচেয়ে বড় অগ্রাধিকার। তবে একান্ত জরুরি প্রয়োজন থাকলে তাদের বিষয়টি শিথিলযোগ্য হতে পারে বলে জানান তিনি।

রোববার থেকে গার্মেন্টস খোলার খবরে শনিবার দিনভর বিভিন্ন জেলা থেকে হাজার হাজার শ্রমিককে ঢাকায় প্রবেশ করতে দেখা যায়।

করোনাভাইরাসের কারণে মানুষের সংস্পর্শ এড়িয়ে চলে ঘরে অবস্থানের নির্দেশনার মধ্যে মহাসড়কে হাজার হাজার মানুষের পায়ে হাঁটা মিছিল ও ফেরিতে গাদাগাদি করে পদ্মা পার হওয়ার ছবি গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে ব্যাপক সমালোচনা হয়।

পরে রাতে ১১ এপ্রিল সরকারঘোষিত সাধারণ ছুটি পর্যন্ত গার্মেন্টস কারখানাগুলো বন্ধ রাখতে পোশাক খাতের দুই সংগঠন বিজিএমইএ ও বিকেএমইএ মালিকদের প্রতি আহ্বান জানায়।

সোহেল রানা বলেন, এরই মধ্যে যারা ঢাকার বাইরে থেকে ঢাকার দিকে যাত্রা শুরু করেছেন, তাদের আমরা আটকে দিয়েছি।

সবাইকে নিজ নিজ বাড়িতে ফিরিয়ে দিয়েছি। এছাড়া নতুন করে জড়ো হয়ে কাউকে ঢাকার দিকে রওনা হতে দিচ্ছি না আমরা।

তিনি বলেন, হাইওয়ে পুলিশ, রেঞ্জ পুলিশ, জেলা পর্যায়ের পুলিশ সদর দপ্তরের কন্ট্রোল রুমের সাথে সমন্বয় করে এই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করছে।

তবে মানুষের চলাফেরার ওপর নিষেধাজ্ঞা থাকলেও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য ও জরুরি সেবার সাথে সংশ্লিষ্ট সব ধরণের পণ্য পরিবহন অব্যাহত থাকবে।

পোশাক শ্রমিকদের কেউ বাড়ি যেতে চাইলে তাকে নিরৎসাহিত করা হবে বলেও জানান তিনি। নির্দেশনা না মানলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সাধারণ ছুটি ঘোষণা-১৪ এপ্রিল পর্যন্ত। বিস্তারিত

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

সাম্প্রতিক আপডেট

স্বাস্থ্যকর্মীদের পর্যাপ্ত সরঞ্জাম নেই,চিকিৎসায় বেহাল দশা

চীনে গত ডিসেম্বরেই করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। মার্চের ৮ তারিখ বাংলাদেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। এরপরই স্বাস্থ্যকর্মীদের সুরক্ষা ব্যবস্থার বিষয়টি আলোচনায় আসে।...

যুক্তরাষ্ট্র WHO তে অর্থায়ন বন্ধ করবে-ঘোষণা দিলেন ট্রাম্প

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন যে তিনি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে WHO (ডাব্লুএইচও) অর্থায়ন বন্ধ করতে যাচ্ছেন। কারণ করোনভাইরাস প্রাদুর্ভাবের প্রতিক্রিয়ায় এটি "এর...

নতুন আক্রান্ত ২১৯ জন, মৃত্যুবরণ করেছে ৪ জন

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় নতুন আক্রান্ত হয়েছেন ২১৯ জন। এছাড়া আরো ৪ জন মৃত্যুবরণ করেছেন। নতুন আক্রান্ত ২১৯...

আক্রান্তের সংখ্যা এক হাজার অতিক্রম।নতুন আক্রান্ত ২০৯

করোনায় বাংলাদেশে মাত্র ৩৮ দিনেই আক্রান্তের সংখ্যা এক হাজার অতিক্রম করলো। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন শনাক্ত হয়েছে ২০৯ জন।

মতামত