Tuesday, December 1, 2020
করোনা ভাইরাস নতুন রেকর্ড বাংলাদেশে- আক্রান্ত ১৮ জন, মৃত্যু ১

নতুন রেকর্ড বাংলাদেশে- আক্রান্ত ১৮ জন, মৃত্যু ১

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাস সংক্রমণে আরো একজন মৃত্যুবরণ করেছেন এবং নতুন রেকর্ড পরিমাণ আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে।

নতুন রেকর্ড গড়েছে বাংলাদেশে আক্রান্তের সংখ্যা দ্বারা। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১৮ জন।

এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৮৮ জনে এবং এ পর্যন্ত মৃত্যুবরণ করেছেন মোট ৯ জন।

আজ রবিবার (৫ এপ্রিল) দুপুরে করোনাভাইরাস বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অনলাইন ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

তিনি জানান, বর্তমানে ২৪ জন করোনা রোগী চিকিৎসাধীন রয়েছেন। আর চিকিৎসা শেষে মোট ৫৫ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন।

করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের ১১ জনই টোলারবাগের বলে জানিয়েছেন আইইডিসিআর পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা।

মীরজাদী জানান, গেল ২৪ ঘণ্টায় ৩৬৭ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। এদের মধ্যে ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে ১৮ জনের শরীরে।

তিনি জানান, এখন পর্যন্ত যারা আক্রান্ত হয়েছেন তাদের মধ্যে মিরপুরের টোলারবাগের ১১ জন, বাসাবোর ৯ জন এবং নারায়ণগঞ্জের ১১ জন।

গার্মেন্টস খোলার সিদ্ধান্ত করোনাভাইরাস সংক্রমণের আশঙ্কা বাড়িয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

মন্ত্রী বলেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সাথে আলোচনা না করেই পোশাক কারখানা খোলার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

এসময় তিনি দেশবাসীকে উদ্দেশ্য করে বলেন, যার যার ঘরে থাকবেন। সামাজিক দূরত্ব মেনে চলবেন।

বাসার বাইরে বের হলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়ম মেনে চলবেন। নামাজ ঘরে পড়বেন।

বাংলাদেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যায় হঠাৎ করে উল্লম্ফন হয়েছে। এর আগে একদিনে সবচেয়ে বেশি ৯ জন আক্রান্ত হয়েছিলেন।

একদিনে আক্রান্ত হয়েছেন ১৮ জন, যা এখন পর্যন্ত একদিনে আক্রান্ত হওয়া সংখ্যার হিসেবে নতুন রেকর্ড গড়েছে বাংলাদেশে।

গত কয়েকদিন ধরে পরীক্ষা সংখ্যা বাড়ানোর পর থেকে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। দেশে করোনাভাইরাস প্রথম শনাক্ত হয় গত ৮ মার্চ ।

এই ২৮ দিনে নিশ্চিত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তির সংখ্যা ৮৮ জন। ১৮ই মার্চ কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়ে প্রথম ব্যক্তির মৃত্যু হয়।

২৫শে মার্চ প্রথমবারের মত আইইডিসিআর জানায় যে বাংলাদেশে সীমিত আকারে কম্যুনিটি ট্রান্সমিশন বা সামাজিকভাবে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ হচ্ছে।

প্রথমে ২৬শে মার্চ থেকে ৪ঠা এপ্রিল পর্যন্ত করোনার বিস্তার ঠেকাতে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে সরকার।

পরে এই ছুটি ১১ই এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানো হয়। অফিস-আদালত থেকে শুরু করে গণপরিবহন সবই বন্ধ রয়েছে।

তবে কাঁচাবাজার, খাবার, ওষুধের দোকান, হাসপাতালসহ জরুরি সেবা এই বন্ধের বাইরে রয়েছে।

আর, সামাজিক দূরত্ব ও হোম কোয়ারেন্টিন নিশ্চিত করতে সক্রিয় রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

সূত্রঃ www.xorona.gov.bd

গতকাল পর্যন্ত আক্রান্ত ছিলো ৭০ জন। বিস্তারিত

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

সাম্প্রতিক আপডেট

স্বাস্থ্যকর্মীদের পর্যাপ্ত সরঞ্জাম নেই,চিকিৎসায় বেহাল দশা

চীনে গত ডিসেম্বরেই করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। মার্চের ৮ তারিখ বাংলাদেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। এরপরই স্বাস্থ্যকর্মীদের সুরক্ষা ব্যবস্থার বিষয়টি আলোচনায় আসে।...

যুক্তরাষ্ট্র WHO তে অর্থায়ন বন্ধ করবে-ঘোষণা দিলেন ট্রাম্প

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন যে তিনি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে WHO (ডাব্লুএইচও) অর্থায়ন বন্ধ করতে যাচ্ছেন। কারণ করোনভাইরাস প্রাদুর্ভাবের প্রতিক্রিয়ায় এটি "এর...

নতুন আক্রান্ত ২১৯ জন, মৃত্যুবরণ করেছে ৪ জন

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় নতুন আক্রান্ত হয়েছেন ২১৯ জন। এছাড়া আরো ৪ জন মৃত্যুবরণ করেছেন। নতুন আক্রান্ত ২১৯...

আক্রান্তের সংখ্যা এক হাজার অতিক্রম।নতুন আক্রান্ত ২০৯

করোনায় বাংলাদেশে মাত্র ৩৮ দিনেই আক্রান্তের সংখ্যা এক হাজার অতিক্রম করলো। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন শনাক্ত হয়েছে ২০৯ জন।

মতামত