Tuesday, December 1, 2020
অন্যান্য গণপরিবহন বন্ধ থাকবে ১১ এপ্রিল পর্যন্ত

গণপরিবহন বন্ধ থাকবে ১১ এপ্রিল পর্যন্ত

করোনাভাইরাস পরিস্থতি মোকাবিলায় দেশব্যাপী ১১ এপ্রিল পর্যন্ত গণপরিবহন বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ।

গণপরিবহন বন্ধ থাকলেও পণ্য পরিবহন, জরুরি সেবা, জ্বালানি, ওষুধ, পচনশীল ও ত্রাণবাহী পরিবহন এই নিষেধাজ্ঞার আওতামুক্ত থাকবে।

শনিবার (৪ এপ্রিল) এই তথ্য জানিয়েছেন সড়ক, পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে জনস্বার্থের কথা বিবেচনা করে আগামী ১১ই এপ্রিল পর্যন্ত দেশব্যাপী সকল গণপরিবহন চলাচল বন্ধ রাখার অনুরোধ করছি।

এ পর্যন্ত আপাতত বন্ধ রাখবেন, পরবর্তী সিদ্ধান্ত পরবর্তীতে জানা যাবে। আরও জানানো হয়, পণ্যবাহী যানবাহনে যাত্রী পরিবহন করা যাবে না।

এর আগে করোনাভাইরাস মোকাবিলায় গত ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সারা দেশে গণপরিবহন ‘লকডাউন’ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল সরকার।

তখন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ভিডিও বার্তার মাধ্যমে ঘোষণা দিয়েছিলেন।

রেল, সড়ক, নৌপথের পাশাপাশি বন্ধ করে দেয়া হয় আন্তর্জাতিক ও অভ্যন্তরীণ বিমান চলাচলও।

যাত্রীবাহী যানবাহন বা নৌযান চলাচল না করলেও পণ্যবাহী যানবাহন চলাচল করবে বলে সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

গণপরিবহন বন্ধের পাশাপাশি করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে প্রথমে ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে সরকার।

এরপর পরিস্থিতি বিবেচনায় সেটি বাড়িয়ে ১১ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

করোনা পরিস্থিতির কারণে সাধারণ ছুটির মধ্যেই দ্বিতীয় দিনের মতো ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক ও পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ঘাটে ঢাকামুখী মানুষের ঢল নেমেছে।

ময়মনসিংহে থেকে গার্মেন্টস কর্মীদের স্রোত আজও যাচ্ছে ঢাকার দিকে। বিভিন্ন এলাকা থেকে লোকজনছোট ছোট যানবাহন করে, পায়ে হেঁটে ময়মনসিংহ আসছেন।

শ্রমিকরা জানান, ৫ তারিখ থেকে গার্মেন্টস খোলা। আগেই ঢাকায় যেতে গার্মেন্টস থেকে বলা হয়েছে। যেতে না পারলে চাকুরি চলে যাবে।

সে কারণে করোনার ভয় নিয়েই রওনা হয়েছেন তারা। তবে সরকারী-বেসরকারী অফিসে ছুটি থাকলেও তাদের ছুটি না থাকায় ক্ষুব্ধ তারা।

এদিকে, বরিশাল থেকে সড়ক পথে রাজধানীমুখী মানুষের ঢল নেমেছে। নগরীর নথুল্লাবাদ ও রুপাতলী বাসটার্মিনালে বিভিন্ন স্থান থেকে জড়ো হন তারা।

গার্মেন্টস কর্তৃপক্ষ মোবাইল ফোনে তাদেরকে ঢাকায় আগামীকাল রোববার উপস্থিত থাকতে বলায় তারা রাজধানীর উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়েছেন বলে জানান তারা।

দূরপাল্লার কোন যানবাহন না পেয়ে বিপাকে পড়েছেন তারা। কেউ ভ্যানে, সিএনজিতে আবার কেউ পায়ে হেঁটেই রাজধানীর উদ্দেশ্যে রওয়ানা করেছেন।

চট্টগ্রামের আনোয়ারায় অবস্থিত কোরিয়ান রপ্তানি প্রক্রিয়াজাতকরণ অঞ্চল (কেইপিজেড) খুলছে আগামীকাল রোববার।

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় সরকারের সাধারণ ছুটি ও গণপরিবহন বন্ধ ঘোষণার মধ্যে এটি খোলা হচ্ছে।

ফলে করোনাভাইরাসের ঝুঁকি নিয়ে কাজে ফিরবেন কেইপিজেডের ২৫ হাজার শ্রমিক।

সূত্রঃ www.rthd.gov.bd

করোনাভাইরাসে ২ জনের মৃত্যু, নতুন আক্রান্ত ৯ জন। বিস্তারিত…..

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

সাম্প্রতিক আপডেট

স্বাস্থ্যকর্মীদের পর্যাপ্ত সরঞ্জাম নেই,চিকিৎসায় বেহাল দশা

চীনে গত ডিসেম্বরেই করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। মার্চের ৮ তারিখ বাংলাদেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। এরপরই স্বাস্থ্যকর্মীদের সুরক্ষা ব্যবস্থার বিষয়টি আলোচনায় আসে।...

যুক্তরাষ্ট্র WHO তে অর্থায়ন বন্ধ করবে-ঘোষণা দিলেন ট্রাম্প

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন যে তিনি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে WHO (ডাব্লুএইচও) অর্থায়ন বন্ধ করতে যাচ্ছেন। কারণ করোনভাইরাস প্রাদুর্ভাবের প্রতিক্রিয়ায় এটি "এর...

নতুন আক্রান্ত ২১৯ জন, মৃত্যুবরণ করেছে ৪ জন

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় নতুন আক্রান্ত হয়েছেন ২১৯ জন। এছাড়া আরো ৪ জন মৃত্যুবরণ করেছেন। নতুন আক্রান্ত ২১৯...

আক্রান্তের সংখ্যা এক হাজার অতিক্রম।নতুন আক্রান্ত ২০৯

করোনায় বাংলাদেশে মাত্র ৩৮ দিনেই আক্রান্তের সংখ্যা এক হাজার অতিক্রম করলো। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন শনাক্ত হয়েছে ২০৯ জন।

মতামত